সালমান শাহ, সালমান খানসহ স্টাইলে সুপারস্টাররা যাকে এখনো অনুকরণ করে

সালমান নব্বইয়ের দশকে যে ফ্যাশন সচেতন ছিলেন তা যে অনুকরণীয় তা প্রজন্মের ফ্যাশন সচেতন তরুণদের দেখলেই বোঝা যায়। অনেকের মতেই সালমান শাহ এমন একজন অ’ভিনেতা ছিলেন, যিনি যেকোনো স্টাইলই মানিয়ে নিতেন।

অনেকে সালমানকে শুধু স্টাইল আইকন হিসেবেই বিবেচনা করেন। অথচ তার সহ’জাত অ’ভিনয়দক্ষতা ও চরিত্রের ভেতরে ঢুকে গিয়ে একেবারে চরিত্রে মিশে যাওয়ার গুণটা ছিল প্রবল। তার প্রথম ছবি কেয়ামত থেকে কেয়ামত যারা দেখেছেন, তারা খেয়াল করে থাকবেন যে সেখানে সালমান এতটাই সপ্রতিভ ও সহ’জাত ছিলেন যে কারো ধারণা হওয়ার উপায় ছিল না ওটাই ছিল তার প্রথম চলচ্চিত্র। অনেক বড় অ’ভিনেতাদেরও প্রথম সিনেমায় জড়তা থাকে, দেখলেই বোঝা যায় নতুন এসেছেন। কিন্তু সালমান শাহ কোনো জড়তা ছাড়া অ’ভিনয় করে গেছেন প্রথম সিনেমায়ই।

অনেকে সালমান শাহকে অনুকরণ করেন। এমনকি বলিউডের অ’ভিনেতারা পর্যন্ত সালমান শাহর স্টাইল অনুকরণ করেন। কিন্তু সালমান শাহর মতো হয় না। সালমান শাহ একটাই হয়, দুটি নয়, হয়তো হবেও না কোনো দিন।

২০১৪ সালে বলিউডের আশিকি টু চলচ্চিত্রের নির্মাতা শুটিং সেটে নায়ক আদিত্য রায় কাপুরকে চরিত্র বুঝিয়ে দিতে গিয়ে বলছিলেন, ‌’তোমাকে আমি বাংলাদেশের প্রয়াত নায়ক সালমান শাহর লুকে চাই। সালমানের স্টাইলগুলো ফলো করো।’ পরবর্তী সময়ে সালমান শাহ অ’ভিনীত কিছু সিনেমা’র ভিডিও ফুটেজ দেখানো হয় আদিত্যকে। এ খবর ভা’রতীয় গণমাধ্যমে প্রকাশিত হয়।

সালমানের ফ্যাশন স্টাইল এতটাই অনুকরণীয় যে এখনো উপমহাদেশের বিভিন্ন দেশে সালমানের আর্কাইভ ঘেঁটে তার স্টাইল অনুসরণ করা হয়। সালমান শাহর মা’থায় কাপড় বাঁ’ধা স্টাইল সে সময় এতটাই জনপ্রিয় হয় যে পাড়া-মহল্লার তরুণদের মা’থায় কাপড় বাঁ’ধার হিড়িক পড়ে যায়।

সালমান তখন স্ত্রী’কে নিয়ে পারিবারিক সফরে মুম্বাই গিয়েছিলেন। তখন শাহরুখই সালমানের সঙ্গে দেখা করতে চেয়েছিলেন। শাহরুখ খানের বলিউডে অ’ভিষেক হয় ‘দিওয়ানা’ চলচ্চিত্রের মাধ্যমে ১৯৯২ সালে। ১৯৯৩ সালে সোহানুর রহমান সোহানের ‘কেয়ামত থেকে কেয়ামত’ চলচ্চিত্রের মাধ্যমে অ’ভিষেক হয় সালমান শাহর। প্রথম ছবিতেই আকাশছোঁয়া সাফল্য পান সালমান। কিন্তু শাহরুখকে জনপ্রিয় হতে অ’পেক্ষা করতে হয় আরো কয়েক বছর।

গত বছরের ১৩ অক্টোবর সেখান থেকে একটি ছবি পোস্ট করেন ফেসবুকে। ‘প্রে’ম পিয়াসী’র সালমানের একটি ছবির সঙ্গে শাকিবের এ ছবিটি হুবহু মিলে যায়। হেয়ার কাটিং, কানের দুল, তাকানোর স্টাইল- সবই সালমানের মতো। তবে সালমান শাহ চুলে রং করেননি। কিন্তু শাকিব চুল রাঙাতে ভুলেননি। এ ছাড়া শাকিব বলেন, ‌সালমান শাহ আইকন।

সালমানের চুলের কাটিং, ক্যাপ, পোশাক-পরিচ্ছদ, চলাফেরা, বাচনভঙ্গি- সবই নতুনদের জন্য অনুকরণীয়। অন্তত এখনো সেটাই দেখা যায়। সাম্প্রতিক সময়েও পোড়া মন-২ ছবির গল্পে আবর্তিত হয়েছে সালমানের স্টাইল। অ’ভিনেতা সিয়ামকে দেখা যায় সালমানভক্ত হিসেবে। যেখানে সালমানের ফ্যাশন অনুকরণ করেন তিনি।

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.


*